স্বাস্থ্য

< Back

কাওয়াসাকি- এক বিরল রোগের লক্ষণ করোনা আক্রান্ত শিশুদের শরীরে

June 29, 2020 | 2 min read

কোভিডের হানাদারির মধ্যে এবার আতঙ্ক বাড়াল বিরল রোগ কাওয়াসাকি। করোনার লক্ষণ নিয়ে ভর্তি হওয়া নাবালকদের শরীরে ধরা পড়ছে এই বিরল রোগের কয়েকটি উপসর্গ। মুম্বইয়ের একদল চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে এমনই তথ্য উঠে এসেছে। সূত্রের খবর, বুধবার ১৪ বছর বয়সি এক নাবালিকা করোনা সন্দেহে মুম্বইয়ের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়। শুক্রবার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে আইসিইউ-তে স্থানান্তরিত করা হয়। ইতিমধ্যে পরীক্ষার পর কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ আসে। কিন্তু এখানেই শেষ নয়। প্রবল জ্বর ছাড়াও মেয়েটির সারা গায়ে প্রচুর র‍্যাশ দেখতে পেয়ে চিকিৎসকদের মাথায় কাওয়াসাকির সন্দেহ মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে।

কাওয়াসাকি

কী এই কাওয়াসাকি? এককথায় বললে, একধরনের জীবাণুঘটিত বিরল রোগ, যার সংক্রমণের কারণ আজও অজানা। মূলত পাঁচ বছরের নীচের শিশুরা এই রোগে আক্রান্ত হয়। এর জেরে রক্তনালী অস্বাভাবিকভাবে প্রসারিত হতে থাকে। যা ধীরে ধীরে হৃদযন্ত্র বিকল করতে পারে। ধুমজ্বর ছাড়াও গায়ে চাকা চাকা দাগ, চোখ, জিভ ও গলা ফুলে হঠাৎ রক্তবর্ণ ধারণ করা এই রোগের কিছু পরিচিত উপসর্গ। চলতি বছরে এপ্রিল মাস নাগাদ চীন, আমেরিকা সহ ইউরোপের একাধিক দেশে করোনা আক্রান্ত শিশুদের দেহে কাওয়াসাকির লক্ষণ ধরা পড়ে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনা-কাওয়াসাকির এহেন বিরল যুগলবন্দি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করে। তারপর তারা এই বিশেষ সংক্রমণকে ‘মাল্টিসিস্টেম ইনফ্লেমেটরি সিনড্রোম’ নাম দেয়। এতদিন এর প্রকোপ থেকে ভারত মুক্ত ছিল। কিন্তু মুম্বইয়ের ঘটনা চিকিৎসকদের চিন্তার ভাঁজ বাড়িয়েছে। সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ তনু সিংহলের কথায়, ওই নাবালিকার বয়স পাঁচ বছরের বেশি। কাওয়াসাকির সমস্ত লক্ষণ হুবহু ধরা না পড়লেও তার কাছাকাছি অনেক কিছুই দেখা গিয়েছে। তাছাড়া ইতিমধ্যে শহরের একাধিক শিশুর শরীরে একই রোগলক্ষণ ধরা পড়েছে। পরে অবশ্য তাদের অনেকের কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। সাধারণত, সংক্রমণের তিন সপ্তাহের মধ্যে শিশুর দেহে কাওয়াসাকির উপসর্গ ফুটে ওঠে। হয়তো এই ২১ দিনে করোনা আক্রান্ত শিশুদের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। যার ফলে রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

TwitterFacebookWhatsAppEmailShare

#Corona Virus, #covid19, #Kawasaki

আরো দেখুন