বাংলার রায় ২০২১
কলকাতা বিভাগে ফিরে যান

স্ট্র্যান্ড রোডে রেলের দফতরে বিধ্বংসী আগুনে ৭ জন মৃত, ঘটনাস্থলে মমতা

March 8, 2021 | 2 min read

স্ট্র্যান্ড রোডে রেলের নিউ কয়লাঘাট বিল্ডিংয়ের অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ৭ জনের মৃত্যুর হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এর মধ্যে অন্তত ৪ জন দমকল কর্মী রয়েছেন। বাকি ২ জন আরপিএফ এবং একজন কলকাতা পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর বলে জানা গিয়েছে। ১৩ তলার লিফটের বাইরে তাদের দগ্ধ দেহ পাওয়া গিয়েছে কিছুক্ষন আগে। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন মমতা বন্দোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)।

অকুস্থলে পৌঁছে মুখ্যমন্ত্রী বলেন যে ঘটনাটি অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। যে কর্মীরা প্রাণ হারিয়েছেন, তাদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। দমকল দফতর ও পুলিশ এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ অনুসন্ধান করবে। তিনি প্রশ্ন করেন কি করে এই আগুন লাগলো এবং কেন রেল দফতরে কোন সিনিয়র প্রতিনিধি সেখানে নেই। তিনি বলেন আগুন মোকাবিলা করার জন্য সবরকম পন্থা নেওয়া হয়েছিল। জ্বলন্ত বাড়িটির মধ্যে কেন লিফ্ট চলছিল, তাই নিয়েও অনুসন্ধান চালানো হবে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানান।

জানা গিয়েছে, বেশ কয়েক জন দমকল কর্মী লিফ্টে উঠছিলেন। ১২ তলায় পৌঁছে তাঁরা লিফ্ট থেকে বেরনোর চেষ্টা করেন কিন্তু প্রচণ্ড তাপের ফলে তাঁরা ফিরে আসার চেষ্টা করেন। কিন্তু চার পাশের বিষাক্ত গ্যাসে তাঁরা সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়েন বলে খবর। দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু এবং কলকাতা পুরসভার বর্ডার চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম ঘটনাস্থলে রয়েছেন। তিনি বলেন, “৪ দমকল কর্মী, ১ জন পুলিশ কর্মী এবং আরপিএফের ২ জন কর্মী লিফ্টে ঢুকেছিলেন।” দমলল মন্ত্রী মৃতদের পরিবারকে ১০ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়েছেন।

ভবনের কাছে আইসিইউ সুবিধা যুক্ত বেশ কয়েকটি অ্যাম্বুল্যান্স তৈরি রাখা হয়েছে। নিরাপত্তার কারণে ওই ভবনের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে। উদ্ধার কাজে আলোর ব্যবস্থার জন্য কয়েকটি জেনারেটর আনা হয়েছে।

১৪ তলা ভবনটির ১৩ তলায় প্রথমে আগুন লাগে বলে জানা গিয়েছে। ভবনের ১৩ তলাতে রেলের অফিস রয়েছে। আগুন ছড়িয়ে পড়ে ভবনের ১২ তলায়। সেখানে রেলের সার্ভার রুমটি ভস্মীভূত হয়েছে। এর ফলে উত্তর-পূর্ব ভারতে রেলের বুকিং ব্যবস্থা ব্যাপক ভাবে ব্যাহত হয়েছে।

আগুন (Fire) লাগার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় দমকলের অন্তত ১৫টি ইঞ্জিন। এতটা উঁচুতে আগুন লাগায় তা নিয়ন্ত্রণে আনতে বেগ পেতে হচ্ছে দমকল কর্মীদের। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে হাইড্রলিক ল্যাডার নিয়ে যাওয়া হয়। আশপাশের ভবনে যাতে আগুন ছড়িয়ে না পড়ে তার চেষ্টা করছেন দমকল কর্মীরা।

সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ১০ মিনিটে আগুন লাগে ওই ভবনে। অগ্নিকাণ্ডের জেরে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন ওই এলাকার মানুষ। স্ট্র্যান্ড রোডের একাংশ বেশ কিছুক্ষণ বন্ধ করে দেওয়া হয়। আগুন লাগার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম, দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু,পূর্ব রেলের কর্তারা, হেয়ার স্ট্রিট থানার ওসি, কলকাতা পুলিশের বিপর্যয় মোকাবিলা দলের সদস্যরা।

TwitterFacebookWhatsAppEmailShare

#Kolkata, #Mamata Banerjee, #Strand Road Eastern Railway building

আরো দেখুন