রাজ্য বিভাগে ফিরে যান

বিরোধী দলনেতার পদ থেকে শুভেন্দুকে সরাতে দিল্লিতে চিঠি রাজ্য BJP-র একাংশের

June 6, 2024 | 2 min read

নিউজ ডেস্ক,দৃষ্টিভঙ্গি: বঙ্গে আরও এক ভোটে ভরাডুবি হল বিজেপির! একুশের ভোটে অবিভক্ত মেদিনীপুরের ৩৫ আসনে পদ্ম ফোটানোর দায়িত্ব নিয়েও ডাহা ফেল করেন শুভেন্দু। ২০২২ সালের পৌরসভা নির্বাচনেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন কাঁথি-সহ মেদিনীপুরের সমস্ত পুরসভায় বিজেপির বোর্ড গঠন হবে। পূরণ হয়নি তা। ২০২৩ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে শুভেন্দু অধিকারী বলেছিলেন বাংলার গ্রামাঞ্চলে তৃণমূলকে ধুয়ে মুছে সাফ করে দেবেন। পদ্ম ফোটেনি।

রাজ্যপালকে কার্যত ছুটিয়েছেন শুভেন্দু। বিচার ব্যবস্থার সাহায্যও পাচ্ছেন শুভেন্দু, এমনই অভিযোগ।
এবার বাংলায় শুভেন্দুকে কার্যত টার্গেট বেঁধে দেওয়া হয়েছিল। লোকসভা নির্বাচনে কমপক্ষে ৩০ আসনে জয় পেতেই হবে। শুভেন্দু যখন আবেদন করেছেন তখনই অমিত শাহ তা পূরণ করেছেন।

বিজেপিকে কার্যত না জানিয়ে সন্দেশখালিতে নিজের পরিকল্পনা মত অপারেশন শুরু করেন শুভেন্দু। বঙ্গ বিজেপির সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে না জানিয়েই, সন্দেশখালিতে জমি আন্দোলনের সঙ্গে মহিলাদের ধর্ষণের বিষয়টি জুড়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। দিল্লির নেতৃত্বকে ভুল বুঝিয়ে মোদী এবং শাহকে দিয়ে সন্দেশখালিকে জাতীয় ইস্যু বানানোর জন্য মিথ্যে তথ্য দেওয়ার জন্য নাকি দায়ী ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী!

সন্দেশখালির ভিডিওগুলি ভাইরাল হওয়ার পরেই বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব বিষয়টি বুঝতে পারলেও শুভেন্দু প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, বাংলায় ত্রিশ আসন পরের কথা কমপক্ষে ৩৫ লোকসভা কেন্দ্রে নিরঙ্কুশ জয় পাবে বিজেপি। মোদীকে পর্যন্ত শুভেন্দু বুঝিয়েছিলেন যে, মোদী বাংলায় শেষ প্রচারে এসেও দাবি করেন বেশি আসন আসবে বাংলা থেকে।

ভোটের ফলাফলে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে শুভেন্দু যাবতীয় মিথ্যে স্তুতি দিয়ে গিয়েছেন। এবার যাবতীয় তথ্য তুলে ধরে বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি ও অমিত শাহের কাছে গতকাল রাতেই জরুরী ভিত্তিতে চিঠি পাঠিয়েছেন বাংলার বিজেপি রাজ্য কমিটির একাধিক সদস্য। তাদের দাবি অবিলম্বে শুভেন্দু অধিকারী এবং অমিত মালব্যকে সরাতে হবে। বিরোধী দলনেতা পদ থেকেও অপসারি করতে হবে শুভেন্দু অধিকারীকে।

TwitterFacebookWhatsAppEmailShare

#West Bengal Politics, #West Bengal, #bjp, #suvendu adhikari, #politics, #Leader Of Opposition

আরো দেখুন