দেশ বিভাগে ফিরে যান

হাতরাস কান্ডে ভোলেবাবাকে ক্লিনচিট যোগীরাজ্যের বিশেষ তদন্তকারী সিটের!

July 10, 2024 | < 1 min read

নিউজ ডেস্ক,দৃষ্টিভঙ্গি: হাতরাসে পদপিষ্ট হওয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত ভোলেবাবাকে কার্যত ক্লিনচিট দিল যোগীরাজ্যের বিশেষ তদন্তকারী দল। মঙ্গলবার, দুই সদস্যের সিট তদন্ত রিপোর্ট জমা দিয়েছে। ধর্মগুরু ভোলেবাবার অনুষ্ঠানে বিশৃঙ্খলা এবং অব্যবস্থার জন্য আয়োজকদের দায়ী করা হয়েছে। ষড়যন্ত্র থাকার ইঙ্গিত রয়েছে রিপোর্টে। ৮৫৫ পাতার রিপোর্টে দোষী হিসাবে ভোলেবাবার নাম উল্লেখ করা হয়নি। রিপোর্ট পেশের পর এসডিএম-সহ ছ’জন আধিকারিককে সাসপেন্ড করা হয়। পদপিষ্ট হওয়ার ঘটনায় শীর্ষ আদালেও মামলা হয়েছে।

শীর্ষ আদালতের অবসরপ্রাপ্ত এক বিচারপতির নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের বিশেষজ্ঞ কমিটির হাতে ঘটনার তদন্তভার তুলে দেওয়ার আর্জি জানিয়ে মামলা দায়ের হয়েছে। যোগী সরকারের কাছে ঘটনার স্ট্যাটাস রিপোর্ট তলব করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২ জুলাই হাতরাস জেলার সীমানায় রতিভানপুর গ্রামে সিকন্দ্রা রাও এলাকায় সুরজ পাল ওরফে নারায়ণ সাকার হরি ওরফে ভোলে বাবার সৎসঙ্গের আসর বসেছিল। অনুষ্ঠানের শেষে পদপিষ্ট হয়ে প্রাণ হারান ১২১ জন। মৃতদের মধ্যে অধিকাংশ মহিলা এবং শিশু। রাজ্য সরকারের নির্দেশে ঘটনার তদন্তের জন্য দু’সদস্যের সিট গঠিত হয়। সিটের রিপোর্ট জমা পড়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সিকান্দ্রা রাওয়ের সাব-ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট রবীন্দ্র কুমার, সার্কেল অফিসার আনন্দ কুমার, তহশিলদার সুশীল কুমার, স্টেশন হাউস অফিসার আশিস কুমার এবং দু’টি স্থানীয় পুলিস আউটপোস্টের ইনচার্জকে সাসপেন্ড করা হয়। কাচোরার চৌরি ইনচার্জ মনবীর সিং এবং পোরার চৌকি ইনচার্জ ব্রিজেশ পান্ডেকেও সাসপেন্ড করা হয়েছে। রিপোর্টে অভিযোগ, সংশ্লিষ্ট অফিসাররা সেদিনের ঘটনাকে গুরুত্ব দেননি এমনকী, ঊর্ধতনকে ঘটনার কথা জানাননি।

সিটের দুই সদস্য এডিজিপি আগ্রা অনুপম কুলশ্রেষ্ঠ এবং ডিসি আলিগড় ভি চৈত্র ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রশাসনিক ও পুলিশ, সাধারণ মানুষ ও প্রত্যক্ষদর্শী-সহ মোট ১২৫ জনের বয়ান সংগ্রহ করেন। ঘটনার ইলেকট্রনিক এবং প্রিন্ট মিডিয়ার রিপোর্ট খতিয়ে দেখেন তাঁরা।

TwitterFacebookWhatsAppEmailShare

#HATHRAS STAMPEDE, #stampede case, #Hathras

আরো দেখুন