বিবিধ

< Back

অঙ্কের প্রশ্ন নিয়ে গৌরীশঙ্কর দেকে ল্যাজেগোবরে করেছিলেন আশুতোষ মুখোপাধ্যায় – জানেন সেই ঘটনা?

June 29, 2020 | 2 min read

‘বাংলার বাঘ’ স্যার আশুতোষ মুখোপাধ্যায়ের ১৫৬তম জন্মবার্ষিকী আজ। ১৮৬৪ সালের ২৯ জুন কলকাতার ভবানীপুরে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তিনি ছিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি ও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর। তিনি ছাত্রদের কল্যাণের জন্য যেমন উদ্বিগ্ন থাকতেন, তেমনি শিক্ষা ও পরীক্ষার ব্যাপারেও তিনি তাদের আগ্রহ সৃষ্টিতে অণুপ্রেরণা দিতেন।

আশুতোষ মুখোপাধ্যায় চাইতেন, প্রশ্নপত্র এমন ভাবে তৈরী হোক তাতে যেন মাঝারি মেধার ছাত্ররাও ভালো ফল করতে পারে। অধ্যাপকদের তিনি বলে দেন যে, পরীক্ষার প্রশ্নপত্র অধ্যাপকদের বিদ্যে জাহির করার জায়গা নয়, প্রশ্নপত্র যেন মাঝারি মানের ছাত্রছাত্রীদের কথা মাথায় রেখে করা হয়। আর সমস্ত প্রশ্নপত্রই আগে স্ক্রুটিনি করবেন তিনি, তারপর তা ছাপা হবে।

সেসময়, একদিন গণিতের পণ্ডিত অধ্যাপক গৌরীশঙ্কর দে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র তৈরী করে নিয়ে গেলেন আশুতোষ মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি। গৌরীশঙ্কর দে তার কাছে গিয়ে বললেন, ‘স্যার, অঙ্ক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র তৈরী, যদি একটু দেখে দেন।’ আশুতোষ তার হাত থেকে কাগজটা নিয়ে চোখ বুলিয়ে একটু গম্ভীর হলেন। তারপর মুখে ‘হুম’ শব্দ করে বললেন, গৌরীবাবু আপনার হাতে ঘন্টা আড়াই সময় আছে? 

গৌরীশঙ্কর দে কিছু না বুঝেই বললেন, ‘আজ্ঞে তা আছে, কেন স্যার?’ আশুতোষ মুখোপাধ্যায় তখন গৌরীশঙ্কর দে’র জন্য কাগজ-কলমের ব্যবস্থা করে দেন। তখন আশুতোষ মুখোপাধ্যায় গৌরীশঙ্কর দে’কে বললেন, ‘আমি স্নানটা সেরে আসি বুঝলেন, আপনি ততক্ষণে যে প্রশ্নপত্রটি তৈরী করেছেন তার অঙ্কগুলো বরং কষে ফেলুন। তারপরই আশুতোষ কাঁধে গামছা ফেলে চলে গেলেন স্নানে।’ কথা শুনে গৌরীশঙ্কর দে’ও অঙ্ক কষতে বসে গেলেন।

ঝাড়া আড়াই ঘন্টা বাদে তার সামনে এলেন আশুতোষ মুখোপাধ্যায়। তখন পরীক্ষা হত আড়াইঘন্টার। আশুতোষ মুখোপাধ্যায় তাকে বললেন, আড়াই ঘন্টা কিন্তু ওভার গৌরীবাবু। আপনার প্রশ্নপত্রের সব অঙ্ক কষে ফেলেছেন তো? গৌরীশঙ্কর দে বললেন, ‘না স্যার, দু’তিনটে এখনো বাকি আছে।’ 

এবার আশুতোষ মুখোপাধ্যায় হেসে বললেন, ‘তাহলেই বুঝুন, নিজের তৈরী প্রশ্নপত্র আপনার মতো পণ্ডিত মানুষের যদি আড়াই ঘন্টা পার হয়ে যায়, অল্পমেধার ছাত্রছাত্রীরা পারবে কেমন করে? যান, বাড়ি গিয়ে ঠাণ্ডা মাথায় তাদের কথা মাথায় রেখে নতুন করে একখানা প্রশ্নপত্র তৈরী করুন।’

TwitterFacebookWhatsAppEmailShare

#Ashutosh Mukherjee

আরো দেখুন