বিবিধ

< Back

ভারতে পরিসংখ্যান চর্চার জনক – প্রশান্ত চন্দ্র মহলানবীশ 

June 29, 2020 | < 1 min read

১৮৯৩ সালে, আজকের দিনে অর্থাৎ ২৯ শে জুন জন্মগ্রহণ করেন ভারতের পরিসংখ্যান চর্চার জনক, প্রশান্ত চন্দ্র মহলানবীশ। তাই আজকের দিনকে পরিসংখ্যান দিবস হিসাবে পালন করা হয়। দেশে পরিসংখ্যানবিদ্যার চর্চা শুরু হয় তাঁর হাত ধরেই। জনগণনার ক্ষেত্রে এখনও তাঁর আবিষ্কৃত ‘মহলানবীশ ডিসট্যান্স’ পদ্ধতিটিই ব্যবহার করা হয়। 

প্রেসিডেন্সি কলেজে অধ্যাপনা করার সময় থেকেই তাঁর মনে হয়েছিল, পরিসংখ্যানবিদ্যা চর্চার জন্য পৃথক কোনও প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজন। সেই ভাবনা থেকেই প্রশান্ত চন্দ্র মহলানবীশ, প্রমথ নাথ ব্যানার্জি এবং আর এন মুখার্জির সাথে সম্মিলিত প্রয়াসে ১৯৩১ সালের ১৭ই ডিসেম্বর ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিসটিকাল ইনস্টিটিউট গঠন করেন।  

তাঁর প্রচলন করা পদ্ধতিতেই, ভারতের মতো এত বড় একটা দেশে তথ্য সংগ্রহ এবং সেই তথ্য বিশ্লেষণের মতো দুরূহ কাজ সম্ভব  হয়েছিল। ন্যাশনাল স্যাম্পেল সার্ভে অফিস (এনএসএসও) এবং সেন্ট্রাল স্ট্যাটিস্টিক্যাল অর্গানাইজেশনের (সিএসও) মাধ্যমে তিনিই দেশের মধ্যে প্রথম একটি সার্বিক পরিসংখ্যান ব্যবস্থা গড়ে তোলেন।

সংখ্যাতত্ত্বের বিষয়ে প্রশান্ত চন্দ্র মহলানবীশের পাণ্ডিত্যকে কাজে লাগাতে দেশের প্রথম যোজনা কমিশনেরও সদস্য করা হয় তাঁকে।  জনসংখ্যা,  মাথাপিছু খরচ, ফসলের উৎপাদন, এমনকি নৃতত্ত্ব, অর্থনীতি, পদার্থবিদ্যার গবেষণার ক্ষেত্রেও তাঁর অবদান অপরিসীম।

পি সি মহলানবীশ পঞ্চ বার্ষিকী পরিকল্পনাকে বাস্তবায়িত করেছিলেন। ১৯৪৯ সালে তাঁকে ভারতীয় মন্ত্রিসভার পরামর্শদাতার পদ দেওয়া হয়। কিভাবে ভারতের বেকারত্ব দূর করা যায় সেই নিয়ে পরিকল্পনা করেন তিনি। তাঁর থেকেই ‘স্যাম্পেল সার্ভে’র কনসেপ্ট নেওয়া হয়েছে।  

TwitterFacebookWhatsAppEmailShare

#PC Mahalanobis

আরো দেখুন